মঙ্গলবার, 24 অক্টোবর 2017 21:46

তবুও মানুষ........

লিখেছেন 
ভোট এবং নাম্বার দিনঃ
(1 জন ভোট দিয়েছেন)
	  	অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরী 

তখনও  তাকিয়ে থাকি, যতক্ষণ 
দেখি নীল আকাশ,  নিঃশব্দ 
সমুদ্র কাছে এসে বলে, ডুব দাও
নোনা জলে নীল পদ্ম 
তোমাকে দেখতে হবে মৃত্যু ক্ষুধা, 
বিধস্ত সভ্যতা যেখানে ফেরাউনের পঁচা লাশ
পিরামিডের যন্ত্রনায়  দগ্ধ  কারারুদ্ধ 
অবাক পৃথিবীর  রং  বদলের পালা 
তারপর দুর্ভেদ্য মনস্তাত্বিক জটিলতা |
সমীকরণটা বহুমাত্রিক 
তানপুরা থেকে গিটার 
নগরের নটির অভিসারে বাজে সারগাম
যৌবন পরে থাকে পান্থশালায় 
কোন এক জলসা ঘরে, 
অভিশাপ আর আর্তনাদ কেঁদে মরে
ইবলিসদের   দরবারে 
রাবনের কামুক চোখ বিচারের নামে
প্রহসনের জলরং জল তরঙ্গে বিষবাস্প ছড়ায় 
আর রাতে, 
মুনাফিদের হাঁটে বেচা কেনা চলে 
মনুষত্বের মানুষ আর খরগোশের চীনা বাদাম 
আর নারীদের সন্মান কিংবা 
সত্যের বদনাম |
তবুও ভাঙা মানুষ সাজায় জীবন 
নিরুত্তাপ তাকিয়ে দেখে 
কোথাও কেউ নেই,  
সব বজ্জাত নিমক হারামের দল  
চলে গেছে কোন শীতের নরকে
যারা বলেছিল আমি তো  স্বর্গের সাথে 
আছি থাকবো চিরকাল  |
© স্বত্ব সংরক্ষিত

150 বার পঠিত
অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরী

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরী ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর এ দীর্ঘদিন যাবত শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত আছেন। শিক্ষা ও গবেষণার ক্ষেত্রে তিনি যেমন অবদান রেখে চলেছেন তেমনি সৃষ্টিশীল লেখার ক্ষেত্রেও তাঁর পদচারণা। তিনি মনে করেন বিজ্ঞান চর্চা, শিক্ষা ও সংস্কৃতি একে অন্যের পরিপূরক। তিনি একাধারে শিক্ষাবিদ, গবেষক, গল্পকার, প্রাবন্ধিক, কবি, গীতিকার, নাট্যকার, সমাজ সংস্কারক ও সাংস্কৃতিক কর্মী। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দর্শনে বিশ্বাসী এই মানুষটির ছোটবেলা থেকেই লেখায় হাতেখড়ি। কৈশোর ও তারুণ্যে তিনি বাংলা একাডেমি, খেলাঘর, কঁচিকাচার মেলা সহ বিভিন্ন সংগঠনে কাজ করেছেন। এই সময় তাঁর প্রবন্ধ, কবিতা বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। প্রকৌশল বিদ্যা অধ্যায়নের সময় তিনি প্রগতিশীল কর্মী হিসেবে কাজ করে সহিত চর্চা করে গেছেন। এ সময় তাঁর লেখাগুলো বিশ্ববিদালয়ের ম্যাগাজিনে এখনও সংরক্ষিত আছে। এছাড়াও অনেকদিন ধরেই তিনি দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকা ও ম্যাগাজিনে লিখে চলেছেন। বাংলা ও ইংরেজি দুই সাহিত্যেই তাঁর সমান দক্ষতা রয়েছে। সমাজ, রাষ্ট্র, প্রকৃতি, বিজ্ঞান, শিক্ষা, পরিবর্তন, সম্ভাবনা ও মানুষ তাঁর লেখার মূল উপজীব্য বিষয়। তিনি একজন ভাল বক্তা। বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের টক্ শো সহ বিভিন্ন সৃজনশীল অনুষ্ঠানে তাকে অতিথি হিসেবে দেখা যায়। ভারতরে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় তথ্যমন্ত্রী অজিত কুমার পাঁজা কলকাতা দূরদর্শনের একটি প্রতিযোগিতায় তাঁর প্রেরিত প্রবন্ধে মোহিত হয়ে নিজ হাতে পুরস্কার তুলে দেন। অনুষ্ঠানটি সরাসরি সে সময় সম্প্রচারিত হয়। এই খবরটি আজকাল, সংবাদ, বাংলাবাজার সহ বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। এছাড়া তিনি ফিলিপিন্স, চীন, বি-টিভি সহ দেশ বিদেশের বিভিন্ন পুরুস্কারে ভূষিত হন। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ও বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের একজন কর্মী হিসেবে তিনি কাজ করে চলেছেন।

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরী এর সাম্প্রতিক লেখা সমূহ

1 টি মন্তব্য

মন্তব্য প্রদান করুন

(*) মন্তব্য প্রদান করার জন্য অত্যাবশ্যকীয় তথ্য. HTML code is not allowed.