রবিবার, 27 ডিসেম্বর 2020 18:52

এখন আমি অন্ধ হব নির্বাচিত

লিখেছেন
লেখায় ভোট দিন
(0 টি ভোট)
                এখন আমি অন্ধ হব

আজ থেকে আমি অন্ধ সাজবো,
অন্ততঃপক্ষে 
অন্ধের ভান করে থাকবো।

আমি আজ বধির হয়ে যাবো,
অন্ততঃপক্ষে বধির হওয়ার 
ভান করে থাকবো ।

যেহেতু আর 
দেখতে শুনতে ভাল লাগে না 
সমাজের বুকে বিচরণশীল মানুষ নামধারী কিছু কিছু-
জানোয়ারের আমানুষিক অপকীর্তি!  

ধর্মের কল যদি বাতাসেই নড়ে,
অধর্মের আগুন জ্বলে কেন তবে 
ধর্মের'ই অন্তরালে! 
কেন আজ মানবতা কাঁদে ধর্মের নামে 
সংঘটিত অত্যাচারে?  

মানুষ পায় না ভাত,
মানুষ'ই করে স্বর্গে বাস। 
মানুষের রক্ত পান করে মানুষ, 
মানুষের গান গায় না তো মানুষ,
মানুষ অমানুষ মিশ্রিত সমাজে 
আজ থেকে আর থাকবো না আমি, 
চলে যাবো পৃথিবী থেকে, 
না পারি যদি তা-ও, 
অন্তত:পক্ষে অন্ধ অথবা বধির হয়ে যাবো; 
নেহাত পক্ষে অন্ধ অথবা বধিরের
ভান করে থাকবো।
.
যেহেতু নিজে বদলে দিতে
পারবো না কখনোই 
বদলে যাওয়া সেইসব 
মানুষের অমানুষিক স্বভাব।

আজ থেকে আমি তাই
অন্ধ হয়ে যাবো
অন্ততঃপক্ষে অন্ধত্বের ভান করে যাবো।

মানুষ আমি,
মনুষ্যত্বের অপমান সইতে পারব না। 
অন্ধ হয়ে যাবো বধির হয়ে যাবো, 
অন্ততঃপক্ষে অন্ধত অথবা
বধিরের ভান করে থাকবো।            
            
32 বার পড়া হয়েছে
শেয়ার করুন
প্রকাশ চন্দ্র

প্রকাশ চন্দ্র জন্ম ১৯৬২ ইং ৪ঠা ডিসেম্বর । নিজস্ব চেম্বার "হোমিও প্রাকটিস সেণ্টার" (প্রধান চিকিৎসক) পিতা মৃত যোগেন্দ্র নাথ রায় । মাতা মৃত শৈলেশ্বরী দেবী রায় । তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে সর্ব কনিষ্ঠ। ১৯৮২ সালে রংপুর হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ থেকে ডি.এইচ.এম.এস. ডিগ্রী অর্জন করেন । এক ছেলে, প্রেমপ্রদত্ত রায় এবং এক মেয়ে প্রীতিপ্রভা রায়। স্ত্রী চামেলী রাণী রায়, কিণ্ডারগার্ডেন স্কুলের টিচার ।

1 মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Make sure you enter all the required information, indicated by an asterisk (*). HTML code is not allowed.