শুক্রবার, 26 মার্চ 2021 17:36

নিটোল দেশ নির্বাচিত

লিখেছেন
লেখায় ভোট দিন
(0 টি ভোট)
                নিটোল দেশ 
 
মায়ের দুধের বাবার স্নেহের বাংলা আমার ভাই
এমন স্বজন ঋণের বাঁধন ছেড়ে কোথায় যাই।
হৃদয় ভেজানো বাসর সাজানো বাংলা মায়ের কোল
নিটোল দেশটি সুখের রেশটি অন্তরে দেয় দোল।
ফলের বাগান দিয়েছে যোগান আম-কাঁঠালে রেশ
ফসল ফলানো সবুজ মাঠের বাংলা সোনার দেশ।

ছয়টি ঋতুর কোমল তন্তুর আঁচল দিয়ে ঘেরা
শরৎ বসন্তে হৈমন্তী দিগন্ত সবার চেয়ে সেরা।
শিউলি ফুলের নদীর কূলের মিষ্টি হাওয়া এসে
সুবাসে আকুল পলাশ বকুল হৃদয় যায় ভেসে। 
দেশের কিষান ফসলে আসান সরল সোজা মন
ক্ষুধার্ত উদরে আশার চত্বরে কেটে যায় জীবন।

দেশের মায়ায় গ্রামের ছায়ায় হয়েছে বড় তারা
ভিটের ঠিকানা মাটির বেদনা গরিব সর্বহারা।
দেশের মাটিতে হাটিতে হাটিতে মম অস্তিত্ব সত্তা
দীনতা স্বল্পতা অভাব অল্পতা দেশেই নিরাপত্তা।
জীবন আঙিনা আপন কল্পনা বাংলায় ছাড়া নাই 
ভাষার রসনা মনের বাসনা বাংলায় খুঁজে পাই।            
            
25 বার পড়া হয়েছে সর্বশেষ হালনাগাদ রবিবার, 04 এপ্রিল 2021 23:02
শেয়ার করুন
মাহমুদ রেজা

বর্তমানে সপরিবারে অভিবাসী মেরু প্রান্তের দেশ সুইডেনে। কারিগরী পেশায় চাকুরিজীবী লেজার নিয়ে। ভিটেবাড়ি বাংলাদেশের ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী উপজেলায়। শৈশব কৈশোর গ্রামে পার করে মাঝামাঝি যৌবনে দেশ ছেড়ে হয়েছি প্রবাসী। দেশ যেমন ভুলে থাকা যায় না ঠিক তেমনি হাজার স্মৃতি বিজড়িত শৈশব কৈশোর মনটাকে টেনে নিয়ে যায় দেশের মাটিতে। উচ্চ মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরিয়ে কারিগরি শিক্ষার জন্য সাহিত্যের চর্চার অভ্যাস কোনদিনই ছিল না। ঘুনাক্ষরেও কখনো চেষ্টা করা হয়নি। প্রবাসের পড়াশোনা, আত্মপ্রতিষ্ঠার নিরবিচ্ছিন্ন শ্রম সাহিত্য চর্চা থেকে দূরেই রাখতে হয়েছে নিজেকে। আব্বার লেখার অভ্যাস ছিল কিছুটা কিন্তু তা মুকুলেই শেষ হয়েছিল বোধহয়। আব্বার জীবদ্দশায় সুযোগ হয়নি এ নিয়ে আলোচনার। নিজের সুপ্ত সম্ভাবনা আজ দেরিতে হলেও যা সৃষ্টি করতে পারছি, আব্বার অজানা রয়ে গেল। ছন্দের মাধুর্য্যতায় বাংলা কবিতা ঋদ্ব এবং সমৃদ্ধ, শ্রুতিমধুরতায় বিশ্বের সেরা ভাষা। ছন্দময় কবিতা আমার লেখায় প্রতিভাত হয়ে থাকে। প্রকাশিত লেখা "ছড়ার মেলা ; মন মুকুরের ভেলা । প্রকাশের পথে, হৃদয়ের নৈবেদ্য।

এই বিভাগে আরো: « ভুলে যাই ঘোর »

1 মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Make sure you enter all the required information, indicated by an asterisk (*). HTML code is not allowed.