এই পৃষ্ঠা প্রিন্ট করুন
শনিবার, 05 ফেব্রুয়ারী 2022 12:57

টাকা পাথর টাকা নির্বাচিত

লিখেছেন
লেখায় ভোট দিন
(0 টি ভোট)
                টাকা পাথর টাকা

মন্টু অফিস থেকে ফিরতেই বেবী তার হাতে একটা একশ টাকার নোট ধরিয়ে দিয়ে বলল, "একটা চলনসই পেন কিনে আনো আগে ; রোজ রোজ লোকের পেন ঝাড়তে তোমার লজ্জা করে না !" "সে ঠিক আছে, আনবো'খন ! টাকাটা কোথায় পেলে?" "খানিকটা পরিশ্রম, খানিকটা বুদ্ধি খরচ করে!" "হেঁয়ালি ভাল্লাগে না, সোজাসুজি বল" "পুরাতন খবরের কাগজ আর তার ভেতরে ওজনদার কয়েকটা পাথর পুরে" । মন্টু হেসে বলল "বেচারা পুরোনো কাগজওয়ালাকেও তুমি ঠকাতে ছাড়ো না" । কিন্তু মন্টুর হাসি দীর্ঘস্থায়ী হলো না পরক্ষনেই মাথায় হাত দিয়ে বসে পড়ে, " হায়, হায়  করেছো কি !"  বেবী অস্থির হয়ে ছুটে আসে, "কি হলো, কি হলো?" "হায়, হায়, সর্বনাশ ! তুমি কি করেছো !" "কি হয়েছে কি?" "হায় হায় ওর মধ্যে আমার তেরো হাজার টাকা ছিল, সব খোয়া গেল। অফিসে আমি দশ-বিশ করে করে সে টাকা জমিয়ে ছিলাম । কত লোকের নামের বানান ভুল করে আবার টাকা নিয়ে ঠিক করে দিয়েছি । কি পরিশ্রমটাই না আমাকে করতে হয়েছে রোজ রোজ !" 
"মন্টু দা বাড়িতে আছেন?" মন্টু নিজেকে সামলাতে সামলাতে দরজা খোলে, "জিয়াউদ্দিন !" "হ্যাঁ দাদা, এটা বোধহয় আপনার" । "ঠিক বলেছিস" । হারানো মানিক ফিরে পাওয়ার খুশিতে ডগমগ  মন্টু ঝটপট মোড়কটা হাতে নিয়ে পকেট থেকে একটা দশ টাকার নোট ধরিয়ে বলে, "ভাই, এটা রাখ, চা খেয়ে নিস" । জিয়াউদ্দিন কে জেয়াউদ্দিন করে প্যাঁচে ফেলে মন্টু বিশ টাকা আদায় করেছিলো, তা থেকে দশ টাকা গচ্চা গেলেও মোটের উপর দশ টাকা থাকবে । "না দাদা আপনি রাখেন, আপনার কাজে লাগবে । আপনার জিনিস টা ফেরত দিলাম, ভাবির কটা জিনিস আর ফেরত দিলাম না" ।            
            
70 বার পড়া হয়েছে সর্বশেষ হালনাগাদ রবিবার, 27 ফেব্রুয়ারী 2022 11:16
শেয়ার করুন
সেখ কামারুল ইসলাম

পশ্চিমবঙ্গের হাওড়ার হাটুড়িয়া গ্রামের অধিবাসী । মূলতঃ প্রবন্ধ লিখলেও মাঝে মধ্যে ছোট গল্প-কবিতা লেখেন । টেলিকম টেকনোলজিতে স্নাতকোত্তর সেখ কামারুল ইসলাম বর্তমানে লোকো পাইলট হিসেবে ভারতীয় রেলওয়েতে কর্মরত । সমাজসেবার নানান কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সঙ্গে সাহিত্য সেবাও করে চলেছেন ।

সেখ কামারুল ইসলাম এর সর্বশেষ লেখা