শুক্রবার, 16 জুলাই 2021 20:39

মন কেড়েছে গাঁয়ের মেয়ে নির্বাচিত

লিখেছেন
লেখায় ভোট দিন
(1 ভোট)
                মন কেড়েছে গাঁয়ের মেয়ে 

  নূপুর পায়ে গাঁয়ের মেয়ে 
      ভুবন  ভরা  রূপ, 
  দীঘির পা'ড়ে কলস রেখে
      জলের মাঝে চুপ। 

  ভ্রমর কালো আঁখির মাঝে
      লাগে প্রেমের ঢেউ, 
  খুব গোপনে দেখছি তারে
      সাথে নেই যে কেউ। 

  দীঘির কালো জলের মাঝে
      ফুটছে যেন ফুল, 
  মন কেড়েছে গাঁয়ের মেয়ে 
      টানছি ছিঁড়ে চুল। 

  হৃদয় মাঝে ঝড় উঠেছে 
      দেখছি তারে খুব,
  মন যে বলে তাহার সাথে
      মারবো  জলে ডুব। 

  জলের সাথে খেলছে মেয়ে
      মনে নাই রে ভয়, 
  ভাবছি মনে কেমন করে 
      করব তারে জয় !
--------------------------------------
স্বরবৃত্ত ছন্দ (৪+৪/৪+১ মাত্রা)
মাত্রাবৃত্ত ছন্দ (৫+৫/৫+২ মাত্রা)            
            
78 বার পড়া হয়েছে সর্বশেষ হালনাগাদ বুধবার, 04 আগষ্ট 2021 11:22
শেয়ার করুন
তারাপদ মাঝী

কবি তারাপদ মাঝী ইং ১৯৭০ সালের ২২ জুলাই সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার সুন্দরবন সংলগ্ন বুড়িগোয়ালিনী গ্রামের সম্ভ্রান্ত 'মাঝী' বংশে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম হেমনাথ মাঝী এবং মাতার নাম শ্রীমতি গান্ধারী রাণী মাঝী। আট ভাইবোনের মধ্যে তিনি পিতামাতার সপ্তম সন্তান। বাল্যকাল থেকেই তিনি ছিলেন খুব মেধাবী ও প্রখর বুদ্ধিদীপ্ত। নবম শ্রেণীর ছাত্রাবস্থায় তিনি খুলনাতে চলে আসেন উচ্চতর শিক্ষার আশায়। তিনি খুলনার রংপুর কালি বাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাশ করার পর খুলনার বি, এল, কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ও বাংলা অনার্স পাস করে পরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় হতে বাংলা বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং সর্বশেষে খুলনার টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থেকে বি,এড ডিগ্রি অর্জন করে শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেন। জীবনের বহু চরাই-উৎরাই পার হয়ে তিনি বর্তমান পিরোজপুরের স্বনামধন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গাজীপুর ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসায় সহকারী অধ্যাপক (বাংলা) পদে কর্মরত আছেন। তিনি একজন প্রসিদ্ধ হোমিওপ্যাথি ডাক্তার। পিরোজপুরের পাড়ের হাট বাজারে তাঁর নিজস্ব হোমিও চেম্বার রয়েছে। বাল্যকাল থেকেই তিনি নাট্য প্রেমী ও সাহিত্য অনুরাগী। বাল্যকালেই তিনি বাংলাসাহিত্যের জাত মহাকাব্য "রামায়ণ" ও "মহাভারত" আত্মস্থ করেন। মূলতঃ নাটক লেখা দিয়ে তাঁর সাহিত্য চর্চা শুরু হয়েছে। তাঁর হাতে লেখা সামাজিক নাটক "বন্ধন" এবং ধর্মীয় নাটক "আদ্যাশক্তি মহামায়া" মঞ্চস্থ হলে তিনি সকলের প্রশংসা লাভ করেন। বর্তমান করোনাকালীন সময়ে তিনি কবিতা নিয়ে গবেষণা করছেন। যদিও তিনি ছন্দে লিখতে পছন্দ করেন তার পরে ও বাংলা কবিতার বিভিন্ন ফরমেটে তিনি সমান দক্ষতার সাথে কবিতা লিখে যাচ্ছেন। তাঁর কোনো কবিতার বই প্রকাশিত না হলেও বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকায় ও বিভিন্ন গ্রুপে তাঁর দুই হাজারের অধিক কবিতা প্রকাশিত হয়েছে। আগামী ২০২২ ইং সালে তাঁর চারটি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশের অপেক্ষায় আছে। দুই কন্যা ও স্ত্রীসহ বর্তমান তিনি পিরোজপুরে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন।

4 মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Make sure you enter all the required information, indicated by an asterisk (*). HTML code is not allowed.